June 23, 2019

বাংলাদেশের হয়ে দ্বিতীয় অস্কার বিজয়ীর নামটি কেউ বলতে পারবেন ?

  দ্বিতীয় কে জিজ্ঞেস করাটা আসলেই একটু কঠিন হয়ে যায়। তাহলে প্রথম ব্যক্তিটি কে সেটাই বলুন। আপনি যদি প্রথমজনকে চিনে থাকেন তাহলে দ্বিতীয় ব্যক্তিটিকে চেনা খুব কঠিন হবে না আপনার জন্য। দুই জনই যে একই ব্যক্তি। হ্যাঁ, কথা বলছি দুইবার একাডেমী এওয়ার্ড পাওয়া আমাদের অস্কারজয়ী নাফিস বিন জাফরের। নাফিস কোনো অভিনেতা নন, নন কোনো পরিচালক, প্রযোজন, সংগীত পরিচালক। নাফিজের সিনেমার সাথে সম্পর্কটা খুঁজে পেতে তাই আমাদের ঘুরে আসা লাগবে পাইরেটস অব দ্যা ক্যারাবিয়ানের সামুদ্রিক রাজ্যে।
২০০৭ সালে মুক্তি পায় পাইরেটস অব দ্যা ক্যারাবিয়ান সিরিজের তৃতীয় কিস্তির সিনেমা এট ওয়াল্ডস এন্ড। এই ছবিতে যে সামুদ্রিক ঝড়, লাগামহীন তুফান আর জলোচ্ছ্বাস দেখে অভিভূত হয়েছে সমগ্র বিশ্বের সিনেমা প্রেমিরা, তাতে প্রকৃতির অবদান ছিলো একদমই শূন্য। ভয়ানক এসব বিধ্বংসী দৃশ্য সৃষ্টির কাজটিই কম্পিউটারের আড়ালে বসে করেছেন বাংলাদেশী বংশোতভূত নাফিস বিন জাফর। পেশায় তিনি একজন ইঞ্জিনিয়ার। ডিজিটাল ফ্লুয়িড সিমুলেশন কৌশল তৈরী এবং এই সিনেমায় প্রযুক্তিটির যথাযথ প্রয়োগের জন্য ২০০৮ সালের একাডেমী এওয়ার্ডে পেয়ে যান সায়েন্টিফিক এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং নামের এক বিশেষ পুরস্কার।বর্তমানে তিনি কাজ করছেন স্টিভেন স্পিলবার্গ নির্মিত বিশ্বখ্যাত এনিমেশন প্রোডাকশন ড্রিমওয়ার্কারসে। ২০১৪ সালের অস্কারে ডেস্ট্রাকশন সিম্যুলেশন সিস্টেম নামের আরেকটি গ্রাফিক্স ট্যুল আবিষ্কারের জন্য পেয়ে যান নিজের দ্বিতীয় অস্কারটি। এবার কর্তৃপক্ষ তাকে পুরস্কৃত করে টেকনিক্যাল এচিভমেন্ট এওয়ার্ড নামের আরেকটি বিশেষ বিভাগে। এনিমেশন চলচিত্র হোক বা জ্বলজ্যান্ত মোশন পিকচার বাংলাদেশী নাফিস বিন জাফর তার কারিগরী দক্ষতার ছাপ রেখে যাচ্ছেন সবখানেই। কুংফু পান্ডা ২ এ হ্যান্স জিমারের মিউজিকের সাথে তার স্কিলের যুগলবন্দীতে ফিউরিয়াস ফাইভের ফাটাফাটি ফাইটিং বা ওয়ান্টেডে এঞ্জিলিনা জোলির দুর্দান্ত একশন, নাফিসের তার সেরাটা দিয়ে যান যেখানেই কাজ করেন। এরপর থেকে সিনেমা দেখতে বসলে যখন সিনেমার শেষে কালো পর্দায় আস্তে আস্তে কলাকুশলীদের নাম উঠতে থাকে, একটু করে দেখবেন কিন্তু নাফিস বিন জাফর নামের একজন বাংলাদেশীর নাম টেকনিশিয়ান বিভাগে আছে কিনা,।দুর্দান্ত গ্রাফিক্সের কাজ সমৃদ্ধ কোনো হলিউডের মুভি আর তাতে নাফিসের অন্তর্ভুক্তি, এতো খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার আজকাল। ছবি - Dhaka Tribune #NafeesBinZafar #Day26 #100DaysOfPositivity #SpreadPositivity#PositiveBangladesh